লঙ্কান স্পিনে ঘায়েল প্রোটিয়া ব্যাটিং

31

স্পিন চ্যালেঞ্জ সামলাতে হবে জেনেই শ্রীলঙ্কায় পা রেখেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রস্তুতিও ছিল। কিন্তু কাজটা কত কঠিন, সফরের প্রথম ইনিংসেই বুঝে গেল প্রোটিয়ারা। গুটিয়ে গেল শ্রীলঙ্কায় নিজেদের সর্বনিম্ন রানে। প্রথম ইনিংসের বড় লিড স্বাগতিকরা আরও বাড়িয়ে নিচ্ছে দ্বিতীয় ইনিংসে।

গল টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১২৬ রানেই গুটিয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শ্রীলঙ্কায় এই প্রথম তারা অলআউট হলো দেড়শর নিচে। আগের সর্বনিম্ন ছিল ২০০৬ সালে ১৬৯ রান।

প্রথম ইনিংসে ১৬১ রানের লিড পাওয়া লঙ্কানরা শুক্রবার দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ৪ উইকেটে ১১১ রানে। এখনই এগিয়ে আছে তারা ২৭২ রানে। হাতে ৬ উইকেট।

আগের দিন শেষ বিকেলে রঙ্গনা হেরাথের বলে আউট হয়েছিলেন এইডেন মারক্রাম। নতুন দিনের শুরুতেও শিকার শুরু করেন অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনারই। ফিরিয়ে দেন নাইটওয়াচম্যান কেশভ মহারাজকে।

সেটি ছিল কেবলই শুরু। দিলরুয়ান পেরেরার অফ স্পিনে কোনো দিশাই পাচ্ছিল না প্রোটিয়ারা। তাদের সেরা ওপেনার ডিন এলগার, স্পিনে সেরা ব্যাটসম্যান হাশিম আমলা আর আগ্রাসী কুইন্টন ডি কক, তিনজনকেই বিদায় করেন পেরেরা।

মাঝে চায়নাম্যান লাকশান সান্দাক্যানকে সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড টেম্বা বাভুমা। দিনের প্রথম ঘণ্টায়ই দক্ষিণ আফ্রিকা হারায় ৫ উইকেট। রান ছিল ৬ উইকেটে ৫১।

সেখান থেকে ফাফ দু প্লেসি ও ভার্নন ফিল্যান্ডারের দৃঢ়তায় দক্ষিণ আফ্রিকা পার হতে পারে একশ। সপ্তম উইকেটে ৬৪ রানের জুটি গড়েন দুজন।

ফিল্যান্ডারকে ফিরিয়ে এই জুটিও ভাঙেন পেরেরা। স্পিন দাপটের মাঝেও এরপর নিজের ছাপটুকু রাখেন লঙ্কান অধিনায়ক সুরাঙ্গা লাকমল। দারুণ এক ইনসুইঙ্গারে ফেরান বাধা হয়ে থাকা দু প্লেসিকে। প্রোটিয়া অধিনায়ক ফেরেন ৪৯ রানে।

শেষ দুটি উইকেটও দ্রুত তুলে নেন লাকমল। শেষ ৪ উইকেট দক্ষিণ আফ্রিকা হারায় ১১ রানে।

বোলিং সাফল্যের পর ব্যাটিংয়ের শুরুটা শ্রীলঙ্কা করে ভালো। দিমুথ করুনারত্নে ও দানুশকা গুনাথিলাকা গড়েন ৫১ রানের উদ্বোধনী জুটি।

কেশভ মহারাজের বাঁহাতি স্পিনে এরপর ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু আবার বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন করুনারত্নে।

প্রথম ইনিংসে আদ্যন্ত ব্যাট করে ১৫৮ রানের ইনিংস খেলা করুনারত্নে এবারও পেরিয়ে যান ফিফটি। শেষ পর্যন্ত তাকে ৬০ রানে থামান কাগিসো রাবাদা।

তবে লঙ্কানদের জয় থামাতে প্রোটিয়াদের করতে হবে এখন অভাবনীয় কিছু।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ২৮৭

দক্ষিণ আফ্রিকা ২য় ইনিংস: ৫৪.৩ ওভারে ১২৬ (এলগার ৮, মারক্রাম ০, মহারাজ ৩, আমলা ১৫, বাভুমা ১৭, দু প্লেসি ৪৯, ডি কক ৩, ফিল্যান্ডার ১৮, রাবাদ ২, স্টেইন ৮, শামসি ০*; হেরাথ ২/৩৯, দিলরুয়ান ৪/৪৬, সান্দাক্যান ১/১৮, লাকমল ৩/২১)।

শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংস: ৩৭ ওভারে ১১১/৪ (গুনাথিলাকা ১৭, করুনারত্নে ৬০, ধনঞ্জয়া ৯, মেন্ডিস ০, ম্যাথিউস ১৪*, রোশেন ১০*; রাবাদা ১/২৮, স্টেইন ০/১৫, মহারাজ ৩/৩৭, শামসি ০/২০, ফিল্যান্ডার ০/১০)।