আবাহনীর সঙ্গে যোগ দিতে সানডে এখন ভারতে

98

সোমবার সন্ধ্যার আগে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের মাঠের পাশে অনেকটা হতাশ হয়ে বসেছিলেন আবাহনীর নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার সানডে চিজোবা। দেখছিলেন মোহামেডান ও শেখ জামালের মধ্যকার প্রস্তুতি ম্যাচ। দলের সাথে ভারত যেতে না পারার কষ্ট পোড়াচ্ছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের প্রথম পর্বে ৯ গোল করা এ স্ট্রাইকারকে।

নিজ দেশে গিয়েই তো ভিসা নেয়ার সময় ছিলো। গেলেন না কেনো? প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে অনেকটা বিরক্তই ছিলেন সানডে। বললেন, ‘সেটা রুপুকে (আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু) জিজ্ঞাস করো।’ সানডে তখনো জানেন না তার ভিসার জন্য শেষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন আবাহনীর শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারা।

নিশ্চয় সুখবরটা রাতে ক্লাবে গিয়ে জেনেছিলেন এ নাইজেরিয়ান। ততক্ষণে ভারত যাওয়ার প্রস্তুতিও শুরু করেছিলেন তিনি। আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু আজ (মঙ্গলবার) আহমেদাবাদ থেকে জাগো নিউজকে জানালেন, ‘সানডে সকালে ঢাকা থেকে রওয়ানা দিয়ে কলকাতা এসেছেন। এখন সানডে আহমেদাবাদামী ফ্লাইটে আছেন। বিকেল সোয়া ৩ টার সময় তার এখানে পৌঁছানোর কথা।’

দলের অন্যদের সঙ্গে যার পাসপোর্ট জমাই নেয়নি ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশন সেই সানডের হঠাৎ ভিসা হলো কী করে? উত্তর দিলেন, ‘আমাদের ক্লাবের চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান সোমবার উদ্যোগ নিয়ে সানডের ভিসার ব্যবস্থা করেছেন। রাত ৮টার দিকে তার পাসপোর্ট নিয়ে ভিসা করিয়ে আনা হয়েছে ভারতীয় হাই কমিশন থেকে। রাতেই সানডেকে ফ্লাই করানোর চেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু ফ্লাইট পাওয়া যায়নি।’

সানডেকে পাওয়া মানে ভারতীয় ক্লাব চেন্নাইন এফসির বিরুদ্ধে পুর্নাঙ্গ শক্তি নিয়েই নামতে পারছে আবাহনী। তবে সকালে ঢাকা থেকে রওয়ানা দিয়ে কলকাতা হয়ে আহমেদাবাদ পৌঁছে তার ঘন্টা চারেক পরই মাঠে নেমে সানডের জন্যও চ্যালেঞ্জ। ‘দেখি এতটা ভ্রমনক্লান্তির পর কেমন কী করেন সানডে’- আহমেদাবাদ থেকে বলছিলেন আবাহনীর ম্যানেজার।

এএফসি কাপ ফুটবলে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে আজ বাংলাদেশ সময় রাত ৮ টায় মাঠে নামছে আবাহনী। আহমেদাবাদে ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন আবাহনীর প্রতিপক্ষ ভারতের চেন্নাইন এএফসি। আবাহনী এএফসি কাপে প্রথম ম্যাচে কাঠমান্ডুতে নেপালের ক্লাব মানাং মারশিয়াংদিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে। দ্বিতীয় ম্যাচে ঢাকায় আবাহনী ২-২ গোলে ড্র করেছে ভারতীয় ক্লাব মিনারভা পাঞ্জাবের সঙ্গে।