ভোটার নেই, ঘুমাচ্ছেন কর্মকর্তা

184

৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে রোববার সকাল ৮টা থেকে থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ হয়েছে। তবে সকাল থেকেই ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম দেখা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়ার কথা থাকলেও ভোটকেন্দ্রে আসেননি ভোটাররা।

এদিকে, উপজেলার এগার গ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে বেলা ১১টার দিকে গিয়ে দেখা যায়, ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি নেই। ভোটার না থাকায় ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ঘুমিয়ে পড়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত উপজেলার ৯৯টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়েছে। এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুইজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

পাশাপাশি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় একজন নির্বাচিত হওয়ার ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছেন। উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৯৬ হাজার ৯৩৬ জন।

কুমিল্লার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা দুলাল তালুকদার ও জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন।

ভোটার উপস্থিতির বিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লার জেলা প্রসাশক আবুল ফজল মীর বলেন, বরুড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কোথাও কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। রোববার দুপুর ১টার দিকে বরুড়া হাজী নোয়াব আলী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন জেলা প্রসাশক আবুল ফজল মীর।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- কুমিল্লার পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম, বরুড়া উপজেলার ইউএনও মাজহারুল ইসলাম, কুমিল্লা ডিবি পুলিশের ওসি নাসির উদ্দিন মৃধা, বরুড়া থানা পুলিশের ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ প্রমুখ।

রিটার্নিং কর্মকর্তা কাইজার মোহাম্মদ ফারাবী বলেন, ৩১ মার্চ ৪র্থ দফা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বরুড়ায় নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও একজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর রিটের কারণে হাইকোর্ট নির্বাচন স্থগিত করে দেন।

সূত্র : জাগো নিউজ