ইরানে হামলার জন্য সত্যি কী যুক্তরাষ্ট্র প্রস্ততি নিচ্ছে?

147

ইরানের হুমকির পাল্টা জবাব হিসেবে কাতারের মার্কিন ঘাঁটিতে বি-৫২ স্ট্রাটোফোরট্রেস বোমারু বিমান পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে রণতরীসহ যুক্তরাষ্ট্রের এই বোমারু বিমান মোতায়েনের মাধ্যমে ইরানকে ভয় পাইয়ে দেয়ার কৌশল হিসেবে আখ্যায়িত করেছে দেশটি। এতে প্রশ্ন উঠেছে কাতার কি যুক্তরাষ্ট্রে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে?

শুক্রবার (১০ মে) কাতারে অবস্থিত মার্কিন ঘাঁটিতে বি০-৫২ বোমারু বিমান মোতায়েনের বিষয়টি কেন্দ্রীয় মার্কিন কমান্ডের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী বুধবার (৮ এপ্রিল) অতিরিক্ত শক্তি হিসেবে বেশ কয়েকটি বি-৫২ বোমারু বিমান মধ্যপ্রাচ্যে পাঠানো হয়েছে। সেখানে মার্কিন বাহিনীকে দেয়া ইরানের হুমকির জবাবে এসব পাঠানো হয়েছে বলে ট্রাম্প প্রশাসন জানিয়েছে।

তবে রণতরীসহ যুক্তরাষ্ট্রের এই বোমারু বিমানের মোতায়েনকে পুরনো খবর বলে উড়িয়ে দিয়েছে ইরান। এটাকে মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধের মাধ্যমে ভয় পাইয়ে দেয়ার কৌশল হিসেবে আখ্যায়িত করেছে দেশটি।

ইতিমধ্যে ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাও কঠোর করেছে ওয়াশিংটন। গত মাসে উপসাগরীয় অঞ্চলে আরেকটি রণতরীর স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে ইউএসএস আব্রাহাম লিংকনকে।

আল উদায়েদ বিমান ঘাঁটিতে মার্কিন বিমান বাহিনীর এক কর্মকর্তা একটি ছবি তুলে কেন্দ্রীয় কমান্ডের ওয়েবসাইটে পোস্ট করেছেন।

ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন, বি-৫২ বোমারু বিমান এসেছে। ২০১৯ সালের ৪ মে ফ্লাইট লাইনে পার্ক করা ২০তম এক্সপেডিশনারি বোম্ব স্কোয়াড্রনে ইউএস বি-৫২এইচ স্ট্রাটোফোরট্রেস বিমান মোতায়েন করতে বলা হয়েছে।

এদিকে জানতে চাইলে দোহার কাছাকাছি আল উদায়েদের গণমাধ্যম কর্মকর্তা কোনো সাড়া দেননি। মধ্যপ্রাচ্য ও আফগানিস্তানে মার্কিন সামরিক অভিযানের দায়দায়িত্ব কেন্দ্রীয় কমান্ডের।

সূত্র :বিডি২৪লাইভ